You are here
Home > ক্রিকেট > একই ম্যাচে রাসেলের সেঞ্চুরি ও হ্যাট্রিক!

একই ম্যাচে রাসেলের সেঞ্চুরি ও হ্যাট্রিক!

একই ম্যাচে রাসেলের সেঞ্চুরি ও হ্যাট্রিক

একই ম্যাচে হ্যাটট্রিক ও সেঞ্চুরি করলেন আন্দ্রে রাসেল। ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (সিপিএল) ম্যাচে শনিবার ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে চার উইকেটে জয় পেয়েছে জ্যামাইকা তালাওয়াশ। ম্যাচটিতে জ্যামাইকা তালাওয়াশের অধিনায়ক আন্দ্রে রাসেল সেঞ্চুরি করেছেন। ৪০ বলে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন তিনি। সিপিএলে এটি দ্রুততম সেঞ্চুরি। ইনিংস শেষে ৪৯ বলে ১২১ রান করে অপরাজিত থাকেন আন্দ্রে রাসেল।

পোর্ট অব স্পেনে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ছয় উইকেটে ২২৩ রান সংগ্রহ করে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স। দলের পক্ষে ২৭ বলে ৪৬ রান করেন ক্রিস লিন। ৪২ বলে ৬১ রান করেন কলিন মুনরো। ২৭ বলে ৫৬ রান করেন ব্রেন্ডন ম্যাককলাম। ১৬ বলে ২৯ রান করেন ডোয়াইন ব্রাভো।

জ্যামাইকা তালাওয়াশের পক্ষে অধিনায়ক আন্দ্রে রাসেল তিন ওভার বল করে ৩৮ রান দিয়ে তিনটি উইকেট শিকার করেন। ইনিংসের শেষ ওভারের দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ বলে যথাক্রমে ব্রেন্ডন ম্যাককলাম, ডোয়াইন ব্রাভো ও দিনেশ রামদিনকে সাজঘরে ফেরান তিনি। এছাড়া ক্রিসমার সানতোকি ১টি, ইমাদ ওয়াসিম ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

পরে জ্যামাইকা তালাওয়াশ ব্যাট করতে নেমে ১৯.৩ ওভারে ছয় উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয়। ২২৫ রান করে তারা। সিপিএলের ইতিহাসে এটি এক ইনিংসে সর্বোচ্চ স্কোর। জ্যামাইকা তালাওয়াশের পক্ষে আন্দ্রে রাসেল ৪৯ বলে ১২১ রান করে অপরাজিত থাকেন। এই রান করার পথে তিনি ছয়টি চার মারেন ও ১৩টি ছক্কা হাঁকান। অর্থাৎ, ১২১ রানের মধ্যে তার ১০২ রানই আসে বাউন্ডারি থেকে।

এছাড়া হাফ সেঞ্চুরি করেন কেনার লুইস। ৩৫ বলে ৫১ রান করে আউট হন তিনি। দলীয় ৪১ রানে জ্যামাইকা তালাওয়াশের পঞ্চম উইকেটের পতন হয়। এরপর আন্দ্রে রাসেল ও কেনার লুইস ১৬১ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। দলীয় ২০২ রানে কেনার লুইস আউট হয়ে যান। আন্দ্রে রাসেল ইনিংস শেষে অপরাজিত থাকেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ডঃ

ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সঃ ২২৩/৬, ২০ ওভার (লিন ৪৬, মুনরো ৬১, ম্যাককালাম ৫৬, ড্যারেন ব্রাভো ২৯; রাসেল ৩/৩৮, ইমাদ ওয়াসিম ১/২৩)

জ্যামাইকা তালাওয়াহসঃ ২২৫/৬, ১৯.৩ ওভার (চার্লস ২৪, লুইস ৫১, রাসেল ১২১*, আলি খান ৩/২৪, ফাওয়াদ আহমেদ ২/৪৬)

ছবিঃ ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত

Leave a Reply

উপরে