You are here
Home > ক্রিকেট > বিসিএলের প্রথম রাউন্ডে জয়ের দেখা পেয়েছে সেন্ট্রাল জোন!!

বিসিএলের প্রথম রাউন্ডে জয়ের দেখা পেয়েছে সেন্ট্রাল জোন!!

বিসিএলের প্রথম রাউন্ডে জয়ের দেখা পেয়েছে সেন্ট্রাল জোন!!

বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ (বিসিএল) এবারের আসর জয় দিয়ে শুরু করলো সেন্ট্রাল জোন। শনিবার শেষ দিনে সাউথ জোনকে ৭৭ রানে হারিয়েছে তারা। নর্থ জোন- ইস্ট জোনেরর ম্যাচটি শেষ হয়েছে ড্র’তে।

শেষদিন সাউথ জোনের প্রয়োজন ছিল ২২৮ রান, ৮ উইকেটে। আশা হয়ে ছিলেন শাহরিয়ার নাফীস ও তুষার ইমরান। তাদের জুটি যোগ করল ৮২ রান, ৫৪ করলেন নাফীস, তুষার ৪০। তবে যথেষ্ট হলো না সেসব, শুভাগত হোম ও আবু হায়দারের বোলিং তোপে ১৮৮ রানেই গুটিয়ে গেছে সাউথ জোন। গতবারের চ্যাম্পিয়নকে প্রথম রাউন্ডে হারিয়ে শুরুটা তাই দারুণ হলো সেন্ট্রাল জোনের।

দিনের শুরুতে বেশ দ্রুতগতিতেই রান তুলছিল সাউথ জোন। তুষারকে ক্যাচ বানিয়ে ব্রেকথ্রু দিয়েছেন রবিউল হক, ফিফটির পর শুভাগতর বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ফিরেছেন নাফীস। ১২৯ রানে ৩ উইকেট হারানো সাউথ জোন সেই রানেই হারিয়েছে নুরুল হাসানকে, তাকে বোল্ড করেছেন শুভাগত।

রকিবুল হাসান ও মেহেদি হাসানের ৪৩ রানের জুটি লড়াইয়ে রেখেছিল সাউথ জোনকে, এরপরই তাদের ইনিংসে নেমেছে ধস। ১৭ রানের ব্যবধানে শেষ ৫ উইকেট হারিয়েছে তারা। শফিউল ইসলামকে বোল্ড করেছেন আবু হায়দার, রুবেল হোসেন ও আব্দুর রাজ্জাক শুভাগতর বলেই দিয়েছেন ক্যাচ। ৫৩ রানে ৫ উইকেট নিয়েছেন এ স্পিনার, আবু হায়দার ৪টি নিয়েছেন ৪৪ রানে। প্রথম ইনিংসে ১৪১ রান করে ম্যাচসেরা হয়েছেন আব্দুল মজিদ।

এ ম্যাচে মোট ৯.৮২ পয়েন্ট পেয়েছে সেন্ট্রাল জোন।

রাজশাহীর ম্যাচটা শেষ পর্যন্ত দাঁড়িয়েছে ব্যাটিং প্রদর্শনীতেই। নর্থ জোনের প্রথম ইনিংসে ৪৪৫ রানের জবাবে ইস্ট জোন করেছিল ৪৪৩ রান, দ্বিতীয় ইনিংসে ফরহাদ হোসেনের অপরাজিত সেঞ্চুরিতে ৪ উইকেটে ২৭০ রান তুলেছে নর্থ। অনুমিতভাবেই ড্র হয়েছে ম্যাচ।

আগেরদিন ৩ উইকেট নিয়ে ৬৫ রানে পিছিয়ে ছিল ইস্ট জোন। ফরহাদ রেজা ও এনামুল হক জুনিয়রের জুটিতেই ইস্ট জোন গিয়েছিল ৪২৪ রান পর্যন্ত। শরিফুল ইসলামের বলে বোল্ড হওয়ার আগে রেজা করেছেন ৮৫ রান, শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে সানজামুল ইসলামের বলে ক্যাচ দেওয়ার আগে এনামুল করেছেন ৫১। মাঝে আবু জায়েদের উইকেট নিয়েছেন জিয়াউর। এবাদত ও সানজামুল নিয়েছেন তিনটি করে উইকেট, জিয়াউর নিয়েছেন দুইটি।

২২ রানে এলবিডব্লিউ হয়ে ব্যাটিং সুযোগ মিস করেছেন নর্থের ওপেনার মিজানুর রহমান, তার সঙ্গী জুনাইদ সিদ্দিক করেছেন সমানসংখ্যক বলে ৫১। দ্বিতীয় উইকেটে জুনাইদ ও ফরহাদ যোগ করেছেন ৯১। তৃতীয় উইকেটে ফরহাদের সঙ্গী ছিলেন সাব্বির রহমান, এ জুটিতে উঠেছে ৭৮ রান। ঝড়ো ব্যাটিং করেছেন সাব্বির, ৪৫ বলে ৫ চার ও ৩ ছয়ে তিনি করেছেন ৫৬।
১২৮ বলে ক্যারিয়ারের ১৭তম সেঞ্চুরি পূর্ণ করেছেন অভিজ্ঞ ফরহাদ, ১২ চার ও ১ ছয়ে অপরাজিত ছিলেন ১০৩ রানে। চার মেরে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেছেন, তার সেঞ্চুরির পরই ড্র মেনে নিয়েছে দুই দল।

এ ম্যাচে নর্থ জোনের প্রাপ্তি ৪.৪৪ পয়েন্ট, ইস্ট জোন পেয়েছে ৩.৬৩।

ম্যাচসেরা হয়েছেন নর্থ জোনের নাঈম ইসলাম, প্রথম ইনিংসে ১৩৭ রানের পর দ্বিতীয় ইনিংসে তিনি করেছেন ২৯।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

সেন্ট্রাল জোন – ১ম ইনিংস ২৮২ (মজিদ ১৪১, শহিদুল ৫৮, আল-আমিন ৩/৬৫, রাজ্জাক ৩/৭০) ও

২য় ইনিংস ২৬৪ (লিটন ৮৪, শহিদুল ৪১, মেহেদি ৫/৭২)
সাউথ জোন-  ১ম ইনিংস ২৮১ (ফজলে ৯৪, নাফীস ৭১, মোশাররফ ৪/৫৩) ও

২য় ইনিংস ১৮৮ (নাফীস ৫৪, তুষার ৪০, শুভাগত ৫/৫৩, আবু হায়দার ৪/৪৪)
সেন্ট্রাল জোন ৭৭ রানে জয়ী

নর্থ জোন- ১ম ইনিংস ৪৪৫ (নাঈম ১৩৭, জহুরুল ১০৪, মিজানুর ৯২, হাসান ৪/৮৪, এনামুল ৩/১২২) ও

২য় ইনিংস ২৭০/৪ (ফরহাদ ১০৩*, সাব্বির ৫৬, আবু জায়েদ ২/৭২)
ইস্ট জোন ১ম ইনিংস – ৪৪৩ (ইয়াসির ৯৪, সাইফউদ্দিন ৬৪, রেজা ৮৫, এবাদত ৩/৮৭, সানজামুল ৩/১১২)
ম্যাচ ড্র

 

 

 

ছবি-ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত 

উপরে